সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
কলাপাড়ায় খাল দখল করে তোলা বহুতল ভবন ভেঙ্গে ফেলছে জেলা প্রশাসন।। কচুয়ায় অগ্নিকান্ডে পুড়েছে ৫টি বসতঘর কচুয়ার তেতৈয়া সপ্রাবি’র ভোট কেন্দ্র স্থানাস্তরের চেষ্টার অভিযোগ ॥ ক্ষোভ চরমে! কলাপাড়ায় করোনাকালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন। কলাপাড়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ।। কলাপাড়ায় গভীর রাতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন, অর্ধলক্ষ টাকা চুরির অভিযোগ।। জীববৈচিত্র্য রক্ষায় সৈকতের প্লাস্টিক বর্জ্য ও ছেড়া জাল অপসারন।। কলাপাড়ায় ফৌজদারী অপরাধে প্রাথমিক প্রধান শিক্ষিকা শ্রীঘরে।। বেলাবতে দৈনিক কালের নতুন সংবাদ পত্রিকার ৪ র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত কলাপাড়ায় ১০ অসচ্ছল সাংস্কৃতিক কর্মীকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক প্রদান।। 

কচুয়ার তেতৈয়া সপ্রাবি’র ভোট কেন্দ্র স্থানাস্তরের চেষ্টার অভিযোগ ॥ ক্ষোভ চরমে!

জিসান আহমেদ নান্নু,কচুয়া ॥
কচুয়া উপজেলার ৬নং উত্তর ইউনিয়নের ৪১নং তেতৈয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন ভোট কেন্দ্রটি অন্যত্র স্থানান্তরের চেষ্টার গুঞ্জন উঠেছে। এ ঘটনায় সচেতন এলাকাবী পূর্বের স্থানেই ভোট কেন্দ্রটি রাখার দাবি জানিয়েছেন। এদিকে পূর্বের স্থানেই ভোট কেন্দ্র স্থাপনের দাবিতে এলাকাবাসীর পক্ষে সম্প্রতি জেলা নির্বাচন অফিসার মো. তোফায়েল হোসেন এর কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন তেতৈয়া গ্রামের অধিবাসী ও ইউনিয় আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম.আখতার হোসাইন।
সরেজমিনে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, স্বাধীনতা পূর্ব ও পরবর্তী সকল সময়ে জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে ৪১নং ততৈয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্বাচন শান্তিপূর্ন ভাবে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। কেন্দ্রটি বৃহত্তম তেতৈয়া ও খিড্ডা গ্রামের প্রায় ২৯শ ভোটর নিয়ে গঠিত এ ওয়ার্ড। অতি সম্প্রতি আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটি মহল তাদের সুবিধার্থে পাশ^বর্তী ১২৬নং খিড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন করেন ভোট কেন্দ্রটি স্থানান্তরের জোর চেষ্টা ও তদবির লবিং করছেন এবং জেলা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসে লিখিত আবেদন করেছেন। কিন্তু স্থানীয়রা বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ নানান কারনে তেতৈয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ই নিরপেক্ষ স্থান। কিছু লোকজনের সুবিধার জন্য পুরাতন এ ভোট কেন্দ্রটি না কেটে বহাল রাখার দাবি করেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য সোহরাব মজুমদার বলেন, সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকা সত্বেও কোনো কারন ছাড়াই একটি বিশেষ মহল তাদের ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের জন্য কেন্দ্রটি স্থানান্তরের অপ-পচেষ্টা করছেন। আমরা এলাকার পক্ষ থেকে এমন হীন চেষ্টার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি তেতৈয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন সংলগ্ন মনোরম পরিবেশেই তেতৈয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রটি বহাল রাখার দাবি জানাই।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম.আখতার হোসাইন বলেন, তেতৈয়া ভোট কেন্দ্রটি একটি ঐতিব্যহী কেন্দ্র। তেতৈয়া ও খিড্ডা গ্রামের সাধারন মানুষ মন মতো এ কেন্দ্রটি ভোট দানে যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। কিন্তু প্রকৃত অর্থে যে বা যাহারা খিড্ডা গ্রামে কেন্দ্রটি নেয়ার চেষ্টা করছেন,মূলত ওই কেন্দ্রে যাতায়াতের উন্নত কোনো সুযোগ-সুবিধা নেই। তাই আমি ও পূর্বের স্থানে ভোট কেন্দ্রটি বহাল রাখার জোর দাবি জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত