শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
কলাপাড়ায় খাল দখল করে তোলা বহুতল ভবন ভেঙ্গে ফেলছে জেলা প্রশাসন।। কচুয়ায় অগ্নিকান্ডে পুড়েছে ৫টি বসতঘর কচুয়ার তেতৈয়া সপ্রাবি’র ভোট কেন্দ্র স্থানাস্তরের চেষ্টার অভিযোগ ॥ ক্ষোভ চরমে! কলাপাড়ায় করোনাকালীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন। কলাপাড়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ।। কলাপাড়ায় গভীর রাতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন, অর্ধলক্ষ টাকা চুরির অভিযোগ।। জীববৈচিত্র্য রক্ষায় সৈকতের প্লাস্টিক বর্জ্য ও ছেড়া জাল অপসারন।। কলাপাড়ায় ফৌজদারী অপরাধে প্রাথমিক প্রধান শিক্ষিকা শ্রীঘরে।। বেলাবতে দৈনিক কালের নতুন সংবাদ পত্রিকার ৪ র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত কলাপাড়ায় ১০ অসচ্ছল সাংস্কৃতিক কর্মীকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক প্রদান।। 

কালীগঞ্জে একটি মডেল ইউপি  নির্বাচন উপহার দিতে চাই – জেলা প্রশাসক, গাজীপুর।

জাকারিয়া আল মামুন- গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি

অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করার লক্ষ্যে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রাথীদের আইন সূক্ষলা রক্ষা বাহিনীর এক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা রিটার্নিং অফিসার কার্যালয়ের আয়োজনে সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এ মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা নির্বাচন অফিসার কাজী মো.ইস্তাফিজুল হক আকন্দের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম। মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ বিপিএম-সেবা, জেলা ব্যাটালিয়ন ৬৩ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর ইমরান, কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার( ইউএনও) মো.শিবলী সাদিক, আনসার ও ভিডিপির জেলা কমান্ড্যান্ট আশরাফুল ইসলাম।

এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারজানা ইয়াসমিন, কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি একেএম মিজানুল হক, রিটার্নিং অফিসার ওমর ফারুক, উপজেলা নির্বাচন অফিসার ফারিজা নুর প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় ৬ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা উপস্থিত হয়ে একটি সুন্দর, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানান।

জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, সকলে মিলে সম্মিলিতভাবে কাজ করলে সুন্দর নির্বাচন উপহার দেয়া সম্ভব। সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও সততার পরিচয়ের মাধ্যমে ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচন সরকারের ভাবমূর্তি জড়িত। জনগণ যাকে ভোট দিবেন সেই নির্বাচিত হবেন। কোনো প্রকার মিথ্যা গুজব ছড়াবেন না। ভুয়া গুজব ছড়ালে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোনো প্রার্থী বারবার কেন্দ্রে ঢুকতে পারবে না। আমরা আশা করছি, প্রার্থীরা তাদের সততা ও নিষ্ঠার পরিচয় দিবেন। অহেতুক কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা বরদাশত করা হবে না।

পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ বলেন, নির্বাচনের পূর্বে ও ভোটের দিন এবং নির্বাচনী পরবর্তী সময়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যথাযথ দায়িত্ব পালন করে যাবেন। ওয়ারেন্টভুক্ত কোনো আসামি এলাকায় ঘুরাঘুরি করতে পারবে না তাদের গ্রেফতার করা হবে। নির্বাচনে যারা নাশকতার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। পাশ্ববর্তী উপজেলা থেকে যাতে কেউ নির্বাচনী এলাকায় ঢুকতে না পারে সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। নির্বাচনে জেলার ৭০ ভাগ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োজিত থাকবেন। রিজার্ভ ফোর্স থাকবে, গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট থাকবে। একটি মডেল নির্বাচন করাই পুলিশ বাহিনীর লক্ষ্য।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন :

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত